• শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০২:২৫ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম:
ফটিকছড়ি উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে, তবে ভোটার উপস্থিতি খুবই কম চৌদ্দগ্রামে রিল্যাক্স পরিবহনের বাস খাদে পড়ে নিহত ৫ নাসিরাবাদ এলাকার মিললো দুই নবজাতকের মরদেহ চট্টগ্রাম থেকে শুরু হয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের হজ ফ্লাইট বাঘাইছড়ি উপজেলার বঙ্গলতলী ইউনিয়নে দুপক্ষের পাল্টাপাল্টি গুলি কর্ণফুলী নদীর মোহনায় প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত যুব ঐক্য পরিষদের সাতকানিয়ার যুগ্ম আহ্বায়ক নির্বাচিত হয়েছেন মিশু দাশ উপজেলা নির্বাচনে মন্ত্রী-এমপির স্বজনদের বিরত রাখা দলের নীতিগত সিদ্ধান্ত : কাদের পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা নিষেধাজ্ঞা তুলে দিয়েছে ভারত এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হবে আগামী ১২ মে

গ্যাস সংকটে বন্ধ চট্টগ্রামের সিইউএফএল

নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : রবিবার, ৭ মে, ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার : গ্যাস সংকটের কারণে বন্ধ রয়েছে সার কারখানা চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার কোম্পানি (সিইউএফএল)। গত ২৭ মার্চ গ্যাস সংকটের কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়া সিইউএফএল কারখানা গত ৫ এপ্রিল চালু হয়ে এক মাস পর আবারও বন্ধ হয়ে গেলো। সিইউএফএল সূত্র জানায়, কারখানাটিতে দৈনিক ১ লাখ মেট্রিক টন অ্যামোনিয়া ও ১ হাজার ৭শ মেট্রিক টন ইউরিয়া উৎপাদন হয়ে আসছে। বর্তমানে কারখানায় গ্যাস সংকটসহ বিভিন্ন যান্ত্রিক ত্রæটির কারণে উৎপাদন কমেছে। বছরে প্রায় সাড়ে তিন লাখ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার উৎপাদন হচ্ছে। বিগত অর্থবছরে কারখানায় প্রায় ২ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার উৎপাদন করা হয়। জানা গেছে, গত একমাসের প্রচেষ্টায় যুক্তরাজ্যের বিশেষজ্ঞ দলের তত্ত¡াবধানে সিইউএফএল কারখানার কনভার্টার ক্যাটালিস্ট পরিবর্তন করা হয়। ক্যাটালিস্ট অ্যামোনিয়া উৎপাদনে উপযোগী করে তোলার জন্য আগামী ১০ মে বিশেষজ্ঞ টিম কারখানা পরিদর্শনের কথা রয়েছে। এর মধ্যে হঠাৎ করে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়ায় ক্যাটালিস্ট এর কাজ শেষ করা নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে। সিইউএফএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, গ্যাস সংকটসহ নানান কারণে কারখানার উৎপাদন বন্ধ থাকলে যন্ত্রাংশে মরিচা পড়ে ও বিকল হয়ে যায়। এতে ক্ষতির পরিমাণ বাড়ে। গ্যাস সরবরাহের জন্য কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড কর্তৃপক্ষকে চিঠির মাধ্যমে জানানো হয়েছে। সিইউএফএলের কর্মকর্তাদের সূত্রে জানা গেছে, কারখানার ইউরিয়া ও অ্যামোনিয়া প্ল্যান্টে পূর্ণ উৎপাদনের জন্য দৈনিক ৪৭-৪৯ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস প্রয়োজন। কিন্তু কারখানার পাইপলাইনে গ্যাসের চাপ কমতে শুরু করলে উৎপাদন বন্ধ রাখতে হয়। ১৯৮৭ সালের ২৯ অক্টোবর জাপানের কারিগরি সহায়তায় কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণ পাড়ে আনোয়ারা উপজেলার রাঙ্গাদিয়ায় সার কারখানাটি প্রতিষ্ঠিত হয়। কারখানা বন্ধ থাকলেও এটি পরিচালনায় দায়িত্বরত ৯ শতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারির বেতন-ভাতা নিয়মিত পরিশোধ করতে হয় কর্তৃপক্ষকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ