• মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০২:০৪ অপরাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম:
ফের আসছে নতুন ঝড়, নদীবন্দরকে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারী সংকেত ফটিকছড়ি উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলছে, তবে ভোটার উপস্থিতি খুবই কম চৌদ্দগ্রামে রিল্যাক্স পরিবহনের বাস খাদে পড়ে নিহত ৫ নাসিরাবাদ এলাকার মিললো দুই নবজাতকের মরদেহ চট্টগ্রাম থেকে শুরু হয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের হজ ফ্লাইট বাঘাইছড়ি উপজেলার বঙ্গলতলী ইউনিয়নে দুপক্ষের পাল্টাপাল্টি গুলি কর্ণফুলী নদীর মোহনায় প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত যুব ঐক্য পরিষদের সাতকানিয়ার যুগ্ম আহ্বায়ক নির্বাচিত হয়েছেন মিশু দাশ উপজেলা নির্বাচনে মন্ত্রী-এমপির স্বজনদের বিরত রাখা দলের নীতিগত সিদ্ধান্ত : কাদের পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা নিষেধাজ্ঞা তুলে দিয়েছে ভারত

ঈদুল আজহার সাত দিন ছুটির পর আজ বসছে সংসদ

নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ৪ জুলাই, ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার : সাত দিন ঈদুল আজহার ছুটির পর আজ ৪ জুলাই মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় শুরু হচ্ছে জাতীয় সংসদের মূলতবি অধিবেশন।

২০২৩-২৪ অর্থবছরের বাজেট পাসের পর ২৬ জুন সংসদের বৈঠক মূলতবি করা হয়েছিল। সংসদ সচিবালয় সূত্র জানিয়েছে, বৈঠকে অন্তত দুটি বিল পাস হবে। দিনের কার্যসূচিতে রয়েছে বহুল আলোচিত গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের (আরপিও) সংশোধনী বিল। পাশাপাশি পাস হবে সরকারি চাকরি (সংশোধন) বিলও। গত ৫ জুন সংসদের বিবেচনার জন্য আরপিও সংশোধনে বিলটি সংসদে উত্থাপণ করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। বিলটি উত্থাপনে জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম আপত্তি জানালেও তা কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। এই বিলে অনিয়মের কারণে ভোট বন্ধে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ক্ষমতা খর্বের প্রস্তাব করা হয়েছে।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ঠিক আগ মুহূর্তে সরকারের প্রস্তাবকে মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হিসেবে অভিহিত করেছেন বিশ্লেষকরা। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল অব বাংলাদেশ (টিআইবি) ও সুশাসনের জন্য নাগরিক(সুজন)সহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিশ্লেষকরা এই সংশোধনীর কঠোর সমালোচনা করেছেন। এদিকে বিলটি জাতীয় সংসদের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সুপারিশসহ সংসদে উত্থাপণ করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা জানান, উল্লেখযোগ্য কোনো পরিবর্তন ছাড়াই বিলটি পাসের সুপারিশ করা হয়েছে।

বিশ্লেষকরা জানিয়েছেন, বিলটি পাস হলে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনিয়ম-বলপ্রয়োগের মতো ঘটনা ঘটলে ভোট বন্ধ করে দেওয়ার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের ক্ষমতা কমে যাবে। বর্তমান আরপিও অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন, যদি মনে করে অনিয়ম বা বিরাজমান বিভিন্ন অপকর্মের কারণে তারা আইনানুগ নির্বাচন করতে সক্ষম হবে না, তাহলে তাদের নির্বাচনের যে কোনো পর্যায়ে ভোট বন্ধ করার ক্ষমতা রয়েছে। আর সংশোধনী আরপিওতে এই ক্ষমতা সীমিত করে ইসিকে শুধু ভোটের দিন সংসদীয় আসনের (অনিয়মের কারণে) ভোট বন্ধ করতে পারার ক্ষমতা দেওয়া হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ