• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]

উত্তরা থেকে আগারগাঁও মেট্রোরেলের সব স্টেশন চালু

নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ : শুক্রবার, ৩১ মার্চ, ২০২৩

পুরোনো ছবি

মেট্রোরেলের উত্তরা দক্ষিণ ও শেওড়াপাড়া স্টেশন চালু হয়েছে। এর মধ্যে দিয়ে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেলের ৯টি স্টেশনই চালু হয়ে গেল। শুক্রবার (৩১ মার্চ) সকাল সাড়ে ৮টায় চালু হয় শেওড়াপাড়া আর উত্তরা মধ্য স্টেশন। এখন থেকে সব কটি স্টেশনেই থামবে ট্রেন। এ ছাড়া আগামী ৫ এপ্রিল থেকে চার ঘণ্টার পরিবর্তে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ছয় ঘণ্টা চলবে মেট্রোরেল।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএএন সিদ্দিক এ তথ্য জানান। এর আগে ১৫ মার্চ মেট্রোরেলের কাজীপাড়া ও মিরপুর-১১ নম্বর স্টেশন খুলে দেওয়া হয়। বর্তমানে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত সাত স্টেশনে ট্রেন থামছে। এই পথে মোট ৯টি স্টেশন রয়েছে। মেট্রোরেলের যাত্রা শুরু হয় উত্তরা ও আগারগাঁও স্টেশনের মধ্য দিয়ে।

তখন মাঝের অন্য কোনো স্টেশনে ট্রেন থামত না। পরের ধাপে পর্যায়ক্রমে উত্তরা সেন্টার, পল্লবী ও মিরপুর ১০ নম্বর স্টেশন চালু হয়। এখন উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত অংশে সব স্টেশন চালু। এপ্রিলের ৫ তারিখ থেকে সময় বাড়বে। জুলাই থেকে পুরোদমে শুরু হবে মেট্রোরেল চলাচল। তখন ভোর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ট্রেন চলবে।

আগামী ডিসেম্বরে মতিঝিল পর্যন্ত ট্রেন চালানো হবে। ট্রেন চলাচলের আধা ঘণ্টা আগে স্টেশন খোলা এবং বন্ধের সময় আগের মতোই থাকবে। এদিকে গত বুধবার পর্যন্ত মেট্রোরেলে আয় হয়েছে ছয় কোটি ২০ লাখ টাকা। এই সময়ে যাত্রী পরিবহন করা হয়েছে ১০ লাখ ৭৭ হাজার। খরচ হয়েছে সাত কোটি ৩৩ লাখ টাকার মতো। বেশির ভাগ খরচ হয়েছে বিদ্যুৎ খাতে।

৩৩ হাজার ৪৭৩ কোটি টাকা খরচে ২০১২ সালে শুরু হওয়া উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ২১.২৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে প্রথম মেট্রোরেলের নির্মাণকাজ এখনো চলমান রয়েছে। গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর এই পথের প্রথমাংশ উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১.৭৩ কিলোমিটার চালু হয়। দ্বিতীয় অংশ আগারগাঁও থেকে মতিঝিল চলতি বছরের শেষ দিকে চালুর পরিকল্পনা রয়েছে। আর মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত বর্ধিতাংশ ২০২৫ সালে চালুর লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ